Photography law. human rights, মানবাধিকার, ফটোগ্রাফি আইন,

ফটোগ্রাফারগন!! নিজেদের আইনগত অধিকার জেনে নিন!!

Blog, Photography , ,
আমি ছবি তুলি এবং রাস্তায় মাঠে মানুষের ছবি তুলতে বেশি ভালবাসি।
 
আজ একজনের সাথে রাস্তায় মাঠে মানুষের ছবি তোলা নিয়ে কথা হল এবং তার মতে হল কাজটা বে-আইনী।  তিনি ল-তে পড়েন, তাই আমি বেশি কথা বলার সুযোগ পেলাম না। আন্ত‌‌‌‌‌‌‌‌‌র্জাতিক ফটোগ্রাফি আইনের কথা উল্লেখ করাতে তিনি মানবাধিকার আইনের কথা তুলে আমাকে থামিয়ে দিলেন। আমি মানবাধিকার আইন নিয়ে কেমন কিছু জানি না, বিশেষ করে ছবি তুলে মানবাধিকার লঙ্ঘন বিষয়ে তো কিছুই জানি না। কিন্তু ফটোগ্রাফি আইন নিয়ে সামান্য কিছু জানি।
 
যাই হোক, এর পরে ফটোগ্রাফি আইন নিয়ে বিশেষ গবেষনা করলাম এবং বাংলাদেশে ফটোগ্রাফি আইন বিষয়ে তেমন কিছু জানতে পারলাম না, কিন্তু আন্ত‌‌‌‌‌‌‌‌‌র্জাতিক আইন বিষয়ে যেটুকু জানলাম তা শেয়ার করি।
 
আইনের বিশাল বিশাল যুক্তির মার প্যাচে না গিয়ে সংক্ষেপণ করলাম।
 
সাধারন আইন:  আপনি যে কোন পাবলিক প্লেসে ছবি তুলতে, সেই ছবি যে কোন জায়গায় পাবলিশ করতে, যে কোন জায়গায় বিক্রি করতে পারবেন কোন অনুমতি ছাড়াই। সারা পৃথিবীর সকল নিউজ পেপার এই কাজ করে আসছে।
 
এবারে কিছু পয়েন্ট বুঝে নেয়া যাক:
পাবলিক প্লেস: যেখানে জনসাধারনের অবাধ যাতায়ত করার সুযোগ রয়েছে। রাস্তা, মাঠ-ঘাট, বাস, রিকশা যে কোন যায়গা যেখানে বিশেষ অনুমতি না নিয়েই আপনি একজন সাধারণ মানুষ হিসেবে যেতে পারবেন।
 
পাবলিশ করা: গ্যালারীতে একজিবিশন, প্রিন্ট পাবলিকেশন, নিউজ, অনলাইন ব্লগ, সোশ্যাল নেটওয়া‌‌‌‌‌‌‌‌‌র্ক ইত্যাদি যে কোন জায়গায় আপনি পাবলিশ করতে পারবেন, কারও কাছে অনুমতি নিতে হবে না।
 
সেল বা বিক্রয়: আপনি নিউজ বা এডিটোরিয়াল পারপাসে যে কোন ছবি সেল করতে পারেন যে কোন মিডিয়ায়। তবে কোন কমা‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌র্শিয়াল বা বিজ্ঞাপন পারপাজে সেল করা যাবে না।
 
কমা‌‌‌‌‌‌‌‌‌র্শিয়াল পারপাজ: বিজ্ঞাপন, ব্রান্ড প্রমোশন, মা‌‌‌‌‌‌‌‌‌র্কেটিং যে কোন রকম বিজনেস সংক্রান্ত প্রচারনাকে বলা হচ্ছে কমা‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌র্শিয়াল পারপাজ। এটা করার জন্য আপনাকে যার ছবি, তা সে রাস্তার মানুষ হোক বা মাঠের মানুষ, আপনাকে একটা মডেল রিলিজ ফ‌‌‌‌‌‌‌‌‌র্মে সই করিয়ে নিতে হবে যাতে লেখা থাকবে যে, সেই মানুষটি আপনাকে ছবি কমা‌‌‌‌‌‌‌‌‌র্শিয়াল পারপাজে সেল করার অনুমতি দিচ্ছেন।
 
ব্যক্তিগত রাইট: আন্ত‌‌‌‌‌‌‌‌‌র্জাতিক আইন মতে, আপনি যখনই পাবলিক প্লেসে বসছেন, তখনই আপনি নিজের ব্যক্তিগত প্রাইভেসী অধিকার ক্ষুন্ন করছেন। আপনার বাড়িতে কেউ ছবি তুললে আপনি আপত্তি জানাতে পারেন, মামলা করতে পারেন, পুলিশ ডাকতে পারেন, তাকে ধরে দুটো মারও দিতে পারেন। কিন্তু পাবলিক প্লেসে হলে কেউ আপনার ছবি তুললে আপনি আপত্তি জানাতে পারবেন না, যদি না তিনি কোন অশোভন আচরণ করেন বা ইত্যাদি ইত্যাদি…. এই অশোভন আচরণেরও একটা হিসাব আছে। নিজের ইচ্ছামত যে কোন কিছুকেই অশোভন বলা যাবে না।
 
প্রাইভেট প্রোপা‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌র্টি: কারও নিজস্ব বাড়ি, নিজস্ব জমি, নিজস্ব মালিকানাধীন যে কোন সম্পত্তিতে দাড়িয়ে ছবি তুলতে এবং প্রকাশ করতে হলে মালিকের অনুমতি লাগবে, সেটা হতে পারে মৌখিক অথবা লিখিত।  এটা প্রযোজ্য কর্পোরেট সম্পত্তির জন্যও।
 
সরকারী সম্পত্তি: সরকারী স্থাপনায় ছবি তুলতে হলে এবং সেই ছবি প্রকাশ করতে হলে সরকারী অনুমতি লাগবে, নয়ত এটা একটা  সিরিয়াস অপরাধ। তবে আপনি যদি পাবলিক প্লেসে দাড়িয়ে যেটুকু সাধারন ভাবে দেখা যায়, তা তোলেন, তাহলে সমস্যা নেই। তবে যদি গাছের মাথায় কিংবা মই নিয়ে তাতে চড়ে ঘাড় উচা করে ছবি তোলা হয়, সেটা অবশ্যই অপরাধ হবে।
 
মিলিটারি স্থাপনা: এটা তো আর বলা লাগে না… নাকি বলতে হবে?
 
বিকৃত উপস্থাপন: আপনি কোন ব্যক্তির কোন ধরনের ছবি বিকৃত করে সেটা উপস্থাপন করতে পারবেন না। সেটা করলে আপনি যেখানেই ছবি তোলেন না কেন, সেই ছবির বিরুদ্ধে ছবির মানুষ ব্যবস্থা নিতে পারবেন। কেউ এমব্যারেসমেন্ট ফিল করে এমন ছবি দেয়া যাবে না। তবে অনেকে সামান্যতম কারনেই এমব্যারেস ফিল করেন, তাই কি এটার একটা মাত্রা আছে, যে কতটুকুতে আইনগতভাবে এমব্যারেস হবে।
 
মোটামুটি এটুকুই। অনেক খুটি নাটি থাকতে পারে, আবার দেশে দেশে কিছুটা পা‌‌‌‌‌‌‌‌‌র্থক্য থাকতে পারে, তবে বেসিকালি এটাই কমবেশি প্রযোজ্য।
 
ফ্রান্সে পুলিশের ছবি তোলা নিষেধ। বাদবাকি অনেক দেশেও নিরাপত্তা ক‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌র্মীদের ছবি তোলা এবং প্রদ‌‌‌‌‌‌‌‌‌র্শন করা বা বিক্রি করা নিয়ে বিধি নিষেধ আছে।
 
এর বাইরে যারা আরও ডিটেল জানতে চান, তারা গুগলে খোজ করুন অথবা আইনজীবির সাথে কথা বলুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *